যেতে যদি চাও, চলে যাও,
কে রেখেছে বেঁধে?
কে দিয়েছে দায়,
বেঁধেছে মিছে মায়ায়।

কে পোড়াবে চোখের জল,
কে দেবে সবুজ আঁচল?
জমিনে কে রেখেছে বেঁধে,
কে দেবে স্নেহের সমাধি-
পাতালপুরীর রাজত্ব ছেড়ে!

মিথ্যে সংসার, ভেলকি মায়ার –
ভালোবাসা আর অভিনয়ে,
মিথ্যে গোলক, স্বর্গ – নরক
বাতাসের রাজত্ব কেড়ে…

কে দিয়েছে ভার, থেকে যাবার
বেলা শেষে ফুরিয়ে গেলে?
কার অভিমান, প্রান আনটান,
কার সময় গেল – অসময়ে –
দরজার কড়া নেড়ে?

কার চোরা চোখ – তার পানে
মনের গলি ছেড়ে – অন্য মোড়ে
কোন পথে হাটে –
খেয়ালি স্বপ্ন ছেড়ে!

কে শুধায়, ভালোবাসা চাই
মমতায় আর আদরে?
কে ধরে আঙুল, কে বাসে ভুল
কার মনে ডুব দেই অতলে?

কোন মরীচিকা, কোন কুহকিনী
কার স্মরনে প্রদীপ জ্বালোনি
কে বেসেছে ভুল, প্রান আকুল,
অভিমানে গিয়েছ ভুলে?

যেতে যদি চাও, চলে যাও –
একটিবার বলে যাও,
শুধু কি অভিমানে?


শব্দ নিয়ে খেলা করতে গিয়েই পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। কার অভিমানে সংসার ভাঙ্গে আবার মন কাঁদে? কার মায়ার আকর্ষনে আবার জোড়া লাগে। এক পথের ভালোবাসা ছেড়ে কেন অন্যপথে হাটে মানব মানবী?

লেখালেখির শুরু সেই স্কুলে থাকতেই। তখন বিভিন্ন দেয়ালিকা আর কিশোর পত্রিকায় নিয়মিত লিখতাম। এরপর দীর্ঘ বিরতি দিয়ে আবার ফেরা লেখালেখিতে। মূদ্রনে ভীষন অনীহা আমার। প্রযুক্তি সেই সুবিধা দিয়েছে আমাকে। প্রযুক্তি প্রেমিক বলে আমার লেখায় বারবার চলে আসে এই বিষয়গুলো। আমার সাহিত্য ভাবনা, ঘোরাঘুরি আর কিছু ছবি নিয়ে। একদম সাদামাটা একজন মানুষের মনের কোনে কি উঁকি দেয়?

Leave a Reply