কবিতা

যে আলো ছড়ায়

হাতের রেখার মত চেনা যে মুখটি,
শ্রাবন দিনে খেলে যায় যে আলোর ভ্রুকুটি
যে হাসি তার লেগে থাকে ঠোঁটের কোনে মায়ায়,
যে উদাসিনতায় ঘুম ভাংগে সাঁঝের ছায়ায়,
যে ছন্দে নাচে সে তা থৈই, তা ধিন
মুগ্ধ তাহার কাজল চোখে, পরাণ-ও তাহার অধীন।

তাহার অঙ্গে খেলে যে বিজলীর আলো
অভিমানী বর্ষায় ভাঙ্গে দু’চোখের কালো।
জীবন তার যাচ্ছে কেটে যেমন তেমন,
দিনগুলো সব ইচ্ছে স্বাধীন-
যেমন খুশি বেঁচে থাকার শৈশব রঙিন।

আমার কুলেতে এসে বসেছে সে ক্ষনিক
যাত্রা তব ক্ষান্ত নয়, শুধু জিরায় স্নেহ বণিক।
বাণিজ্যেতে বসে না মন, নয় দূর যাত্রায়
এই গাছের ছায়ায়, প্রেম মায়ায়,
দিগ্বীজয়ী ক্ষণিক আলো বিলায়…।

মন্তব্য