এ যুগের বিক্রামাদিত্যের গল্প
  • গল্প
  • অভিনয়
  • গ্রাফিক্স
  • চরিত্র
  • মিউজিক
  • সিনেমেটোগ্রাফি
4.3

Vikram Vedha (2018) - যে ছবি থ্রিলার প্রেমিদের ভালো লাগতে বাধ্য

গল্প বলার ধরনে একটা নতুনত্ব আছে। আপনি যদি থ্রিলার আর সাসপেনশন পছন্দ করেন তবে এই ছবি আপনার ভালো লাগতে বাধ্য। রাজা বিক্রামাদিত্যের ঘাড়ে চড়ে বেতাল যেমন একের পর এক গল্প বলে যাচ্ছিল, সেরকম পুলিশের ঘাড়ে চড়ে এক ক্রিমানালের ক্রিমিনাল হয়ে ওঠার গল্প আছে এই ছবিতে।

অনেক অনেক তামিল মুভি দেখা হয় ইদানিং, তার মধ্যে সব গুলোর কাহিনী মনেও থাকে না। কিছু মুভি দেখি শুধু মনোরঞ্জনের জন্য, কিছু মুভি বন্ধু বান্ধব সাজেস্ট করার কারনে।

আর কিছু দেখা হয় প্রিয় নায়ক বা নায়িকার জন্য। হিন্দির থেকে তামিল বা তেলেগু মুভি বেশি ভালো লাগার কারন এদের ছবি গুলোর কাহিনী খুব দ্রুত আগায়। অসম্ভব ভালো ভালো লোকেশন থাকে সেই সাথে মন কাড়া অভিনয়। যদিও সব মুভি আবার একই রকম নয়। বাজে কাহিনী আর নির্মানের মুভিও আছে।

হিন্দি ছবির এই কাহিনী খরার আকালে ইউটিউবে সময় কাটানোর জন্য তামিল মুভিই আমাদের অনেকের পছন্দ।

আজকে যে মুভিটা দেখলাম এটা বন্ধু রাকেশের সাজেস্ট করা। মনে দাগ কাটার মত একটা মুভি। আমি হলিউড মুভির ফ্যান হওয়া স্বত্তেও এই মুভিটা না টেনে পুরোটা দেখেছি। একবারের জন্যও বোরিং ফিল করিনি।

ভিক্রম ভেদা (Vikram Vedha)ঃ কাহিনী যেমন সাধারন মারামারির মুভি থেকে আলাদা করে করা হয়েছে, তেমনি তামিল মুভির স্পেশাল ইফেক্টগুলো এই ছবিতে অনুপস্থিত। এক ঘুষি খেয়ে দশটা ড্রপ খেয়ে আবার উঠে দাঁড়ানোর স্টান্ট বাজি এই ছবিতে নাই 🙂

আমার আগ্রহ নিয়ে দেখার আরো একটা কারন হল মাধবন, এই নায়কের প্রথম মুভি দেখেছিলাম “রেহনা হ্যায় তেরে দিল মে”, দেখার পর থেকেই আমি তার ফ্যান।

মাধবন আমার দৃষ্টিতে ১-১০ এর মধ্যে থাকবে যদি আমাকে কখনো সেরা নায়ক বাছাই করতে দেয়া হয়। শেষবার বোধহয় আমি মাধবন এর “সালা খাড়ুস” নিয়ে ফেইসবুকেও একটা স্ট্যাটাসও দিয়েছিলাম। এইরকম একাগ্র অভিনয় আর চরিত্রের সাথে মিশে যাওয়া খুব কমই দেখেছি।

কাহিনী সংক্ষেপঃ 

রাজা বিক্রামাদিত্যের গল্প ছোটবেলায় পড়ে থাকবেন অনেকেই। নিজ রাজ্য রক্ষায় যিনি অভিযানে নেমেছিলেন এবং সন্যাসীর কথায় বেতালকে ধরে আনতে যান। বেতালের সাথে তার দ্বন্দ এবং গল্প বলে বেতাল তাকে নানা বিপদে ফেলার চেষ্টা, এবং শেষ পর্যন্ত বেতালের আসল কাহিনীর মর্মোদ্ধার, সব কিছুর একটা প্রচ্ছন ছায়া পাবেন এই ছবিতে।

মাধবন খুবই সৎ পুলিশ অফিসার হিসেবে এই ছবিতে দেখা যায়। অপরাধীকে গুলি করতে তার ট্রিগার চাপতে এক সেকেন্ডও দেরি হয় না। ভেদা নামের খুনি ও স্মাগলারকে ধরতে সে বদ্ধ পরিকর।

কিন্তু প্রতিবারই ভেদা তাকে একটা নতুন গল্প শোনায় যা আসলে পুরো কাহিনীর অংশ বিশেষ। এ যেন বিক্রামাদিত্যের বেতালকে বশে আনার চেষ্টা। এক পর্যায়ে মাধবন ও তার পুলিশি খোলস থেকে বেরিয়ে আসতে বাধ্য হয় এবং স্মাগলার ভেদার কথা তাকে ভাবিয়ে তোলে।

পুরো কাহিনী বলে দিচ্ছি না, নিজেই দেখে নিতে পারেন ছবিটা। কথা দিচ্ছি সময়টা এক বিন্দুও অপচয় হবে না। আর সাথে আছে মাধবন এর প্রানবন্ত অভিনয়।

কাহিনীর গতি আছে, অহেতুক নাচ-গান নেই, পদার্থ বিজ্ঞানের সূত্র অমান্যকারী একশন দৃশ্য নেই, তবুও ছবিটা দশে নয় পাবার যোগ্য।

Movie:– Vikram Vedha
Star-cast:– R. Madhavan, Vijay Sethupathi, Shraddha Srinath
Directed by:– Pushkar–Gayathri
Music by:– Sam C. S.

লেখালেখির শুরু সেই স্কুলে থাকতেই। তখন বিভিন্ন দেয়ালিকা আর কিশোর পত্রিকায় নিয়মিত লিখতাম। এরপর দীর্ঘ বিরতি দিয়ে আবার ফেরা লেখালেখিতে। মূদ্রনে ভীষন অনীহা আমার। প্রযুক্তি সেই সুবিধা দিয়েছে আমাকে। প্রযুক্তি প্রেমিক বলে আমার লেখায় বারবার চলে আসে এই বিষয়গুলো। আমার সাহিত্য ভাবনা, ঘোরাঘুরি আর কিছু ছবি নিয়ে। একদম সাদামাটা একজন মানুষের মনের কোনে কি উঁকি দেয়?

Leave a Reply